ফরমালিনমুক্ত ভালো আম চেনার উপায়

Jul 03, 2018 07:36 pm

ফরমালিনমুক্ত ভালো আম চেনার উপায়

ফলের মৌসুমে বড় আতঙ্কের নাম ফরমালিন কিংবা রাসায়নিক উপাদানযুক্ত ফল। বিশেষ করে এই মৌসুমে ফলের রাজা আমের খাওয়া একটা উৎসবের মতো চলে। এর মধ্যে ক্যামিকেলযুক্ত আম কেবল স্বাস্থ্যের জন্যেই হুমকি নয়, একে নিয়ে দুশ্চিন্তা উৎসবের আমেজটাকেই নষ্ট করে দেয়। ইতিমধ্যে আমাদের আম উৎসব শুরু হয়ে গেছে। ল্যাংড়া, গোপালভোগ, হীমসাগর, আম্রপালি, বারোমাসি, ফজলি থেকে শুরু করে আরো অনেক নামের ও জাতের আম মেলে বাজারে। যারা ভালো আম চিনতে হিমশিম খান তাদের জন্যে এই পরামর্শ।

আসলে ভালো আম কিংবা ক্যামিকেলমুক্ত যাই বলেন না কেন, দেখে-শুনে এগুলোই খেতে হবে। ফরমালিন মেশানো আম খেয়ে খুব সহজেই অসুস্থ হয়ে যাবেন। এসব আম পরিবারের শিশুসহ সবার জন্যেই ক্ষতিকর। এখানে ভালো আম চেনার সহজ উপায়গুলো শিখে নিন। কিছু পদ্ধতি সম্পর্কে অনেকেই জানেন। যারা জানেন না তারা চোখ বুলিয়ে নিন।

১. এ পদ্ধতি সবাই জানতে পারেন। আমে মাছি বসছে কিনা দেখুন। রাসায়নিক উপাদান মেশানো থাকলে মাছি তা এড়িয়ে যায়। যদি মাছির আনাগোনা থাকে তো বুঝে নিন তাকে ফরমালিন মেশানো হয়নি।

২. আম পাকাতে আরো অন্যান্য রাসায়নিক উপাদান ব্যবহৃত হয়। কারবাইডের ব্যবহার হয়ে থাকে। এসব দিয়ে পাকানো আমের শরীর হয় মোলায়েম ও দাগহীন। এগুলো দেখলেই কেনার লোভ জাগে। আসলে গাছের কাঁচা আম পেড়েই এগুলো ওষুধ দিয়ে পাকানো হয়। ফলে তাতে কোনো দাগ থাকে না।

৩. গাছপাকা ফলের স্বাদ মুখে লেগে থাকে। তাই গাছপাকা আম খোঁজেন অনেকে। মিলতেও পারে। এ ধরনের আমের গায়ে সাদাটে ভাব থাকে। দেখলে হয়তো ভালো লাগবে না। কিন্তু বুঝতে হবে এগুলো গাছেই পেকেছে। ফরমালিন বা অন্য রাসায়নিকে চুবানো আম ঝকঝকে সুন্দর হয়।

৪. গাছপাকা আম চেনার আরেকটা উপায় আছে। গাছে আম পাকলে তা গোড়ার দিকে হলদেটে বা গাঢ় রং হয়ে থাকে। ধীরে ধীরে সেই রং ফিকে হয়ে দেহের অন্যান্য অংশে ছড়ায়। কিন্তু কারবাইডে পাকানো আম পুরোটাই হলদেটে হয়ে যায়।

৫. আম নাকের কাছে নিয়ে গন্ধ নিন। গাছপাকা আমের গোড়ার দিকে সুন্দর গন্ধ থাকে। হলে অবশ্যই বোটার কাছে ঘ্রাণ থাকবে। ওষুধ দেয়া আম হলে কোনো গন্ধ না থাকারই কথা।

৬. আম মুখে দেয়ার পর তার দারুণ স্বাদ মিলবে। স্বাদ-গন্ধ সবই মিলবে।

৭. আম কিনে ফেললে একটু পরীক্ষা চালান। ভালোমানের আম কোথাও রাখলে তার গন্ধ চারদিকে ছড়িয়ে পড়বে। ওষুধ মেশানো আম থেকে এমন গন্ধ বের হবে না।